সামাজিক মাধ্যমকে নিয়মে বাঁধবে যুক্তরাজ্য

কর্তৃক প্রযুক্তি সারাদিন
0 মন্তব্য 410 ভিউজ

ক্ষতিকর কনটেন্ট মুছে দেওয়া বা ব্লক করার ব্যাপারে দায়ভার নিতে হবে সামাজিক যোগযোগ মাধ্যম ফেইসবুক, মাইক্রোব্লগিং সাইট টুইটার ও স্ন্যাপচ্যাটকে। যুক্তরাজ্য বলছে, সামাজিক মাধ্যমগুলো যাতে এই দায়ভার নেয় সে ব্যবস্থা করা হবে।

বিষয়টি নিশ্চিত করতে আইনতভাবেই উদ্যোগ নেওয়া হবে। যুক্তরাজ্য সরকার বলছে, আইন করে ঠিক করে দেওয়া হবে যাতে সব প্রতিষ্ঠানের এমন একটি সিস্টেম থাকে যেটির মাধ্যমে ক্ষতিকর কনটেন্টের ব্যাপারে ব্যবস্থা নেওয়া ও ব্যবহারকারীদের নিরাপত্তা উন্নত করা সম্ভব হয়।

যেসব প্ল্যাটফর্মে ব্যবহারকারী সৃষ্ট কনটেন্ট শেয়ার হয়, শুধু ওই প্ল্যাটফর্মগুলোই যুক্তরাজ্য সরকারের এই নিয়মের আওতায় পড়বে বলে জানা গেছে। বড়দের তুলনায় শিশুদের জন্য অনলাইনে উচ্চ মানের সুরক্ষা দেওয়ার চিন্তাধারা থেকেই নিয়মনীতি নির্ধারণ করা হবে।

গত বছরই নতুন অনলাইন সুরক্ষা আইনের প্রস্তাব রেখেছে ব্রিটেন। সেটিকে বিশ্বের সবচেয়ে কঠোর আইন বলেও দাবি করা হয়েছে। যুক্তরাজ্যের সাবেক প্রধানমন্ত্রী টেরিজা মে বলেছিলেন, “ব্যবহারকারীদের অনলাইনে নিরাপদ রাখতে ইন্টারনেট প্রতিষ্ঠানগুলোকে আইনতভাবে নিয়মের অধীনে নিয়ে আসা হবে”।

শুধু যুক্তরাজ্য নয়, বিশ্বজুড়ে অনেক দেশের সরকারই ‘অনলাইন পর্নোগ্রাফি’, ভোটারদের প্রভাবিত করা, হয়রানিতে উৎসাহ জোগানো, ইত্যাদি কনটেন্টের ছড়িয়ে পড়া ঠেকাতে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের উপর নিয়ন্ত্রণ প্রতিষ্ঠা করতে চাচ্ছে।

0 মন্তব্য
0

তুমিও পছন্দ করতে পার

মতামত দিন