কম্পিউটার কেনার সিদ্ধান্ত নিজেই নিন

কর্তৃক অপু রায়
0 মন্তব্য 1170 ভিউজ

একটা ভাল কম্পিউটার কিনতে গিয়ে আমার অনেকেই দ্বিধা দ্বন্দ্বতে ভুগি। এই যেমন কম্পিউটার না ল্যাপটপ কিনব, ব্রান্ড না নন-ব্রান্ড কোনটা কিনব, গ্রাফিক্স কার্ড কোনটা নিব, রাম কত নিব। এই সিদ্ধান্ত গুলো নিতে আমরা প্রায়ই অন্যের কাছে বুদ্ধি পরামর্শ নেই। অথচ একটু কষ্ট করলে আমরা সহজেই কম্পিউটার কিনার সিদ্ধান্ত গুলো নিজেই নিতে পারি। এরজন্য যেটা সর্ব প্রথম বিবেচনায় আনতে হবে তাহল কোন ধরনের কাজ করার জন্য কম্পিউটার কিনছি। ধরি আমি যদি গ্রাফিক্স নিয়ে কাজ করেতে চাই তাহলে অবশ্যই একটা ভাল গ্রাফিক্স কার্ড প্রয়োজন হবে। আবার যদি আমি শুধু মাইক্রোসফট অফিস নিয়ে কাজ করতে চাই সেক্ষেত্রে আমার ভাল গ্রাফিক্স কার্ড প্রয়োজন হবে না। চলুন দেখা যাক আমরা কোন কোন বিষয় বিবেচনা করে একটা কম্পিউটার কিনার সিদ্ধান্ত নিব।

• আপনার বাজেট
প্রথমে কম্পিউটার কেনার বাজেট এবং কি কাজের জন্য দরকার তা নির্ধারণ করতে হবে। আপনার সেরাটা চাই কিন্তু তা অবশ্যই আপনার সামর্থ্যের মধ্যে হতে হবে। তাই আপনি প্রথমে আপনার বাজেট নির্ধারণ করবেন।
• ল্যাপটপ বা ডেস্কটপ
আপনার বাজেট নির্ধারণ হলে আপনার ল্যাপটপ বা ডেস্কটপ প্রয়োজন তা নির্ধারণ করবেন এবং তা অবশ্যই আপনার কাজের ধরনের উপর নির্ভর করে ঠিক করবেন। এখানে আপনি চাইলে আপনার চাহিদার সাথে মিল রেখে আপনার বাজেটটি একটু কম বা বেশি করে নিতে পারেন।
আমাদের বাজেট ও কাজের ধরন নির্ধারণ হয়ে গেছে এখন কম্পিউটারের দিকে তাকানোর সময়।
আসলে কম্পিউটার কেনার সময় অনেকগুলি বিষয় বিবেচনা করা যায়, এখানে আমি সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ কিছু বিষয়ে আলোচনা করব যাতে করে কম্পিউটার কিনার সময় এই বিষয় গুলো মাথায় রেখে কম্পিউটার নির্বাচন করতে পারেন।
• প্রসেসর
আজকাল কম্পিউটার নির্বাচন করার সময় এটি সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। আমার মতে ইন্টেল এই মুহুর্তে সেরা চিপগুলি তৈরি করে যার কারনে বাজারে ইন্টেলের প্রসেসর গুলো এখন সবচেয়ে ভাল। তাই আপনার বাজেটের মধ্যে ইন্টেলের প্রসেসর নিতে পারেন।
• মাদারবোর্ড
প্রসেসরের সাথে সামঞ্জস্য রাখে মাদারবোর্ড নির্বাচন করবেন। সাধারন ভাবে ইন্টেলের মাদারবোর্ড সবদিক থাকে ভাল হয়। আপনি যদি গেমার হন তাহলে আসুস, এমসই এর মাদারবোর্ড নিতে পারেন। ডেস্কটপের ক্ষেত্রে ভবিষ্যৎতে কম্পিউটারের যন্ত্রাংশ আপডেট এর পরিকল্পনা থাকলে মাদারবোর্ড নির্বাচনে একটু সতর্ক থাকবেন। যাতে করে পরে খুব সহজে আপডেট যন্ত্রাংশ যুক্ত করতে পারেন।
• RAM (কম্পিউটার মেমরি)
আপনার কম্পিউটারে যত বেশি RAM থাকবে, আপনি তত বেশি ব্রাউজার এবং অ্যাপ্লিকেশন একসংগে চালাতে পারবেন। কম্পিউটারের জন্য ৪ গিগাবাইট আজকাল সবচেয়ে মৌলিক চাহিদা। অনেকেই এখন তাদের কম্পিউটারের জন্য ৮ গিগাবাইট RAM নিয়ে থাকে। আপনি যদি গেম খেলা, ফটো বা ভিডিও এডিট, সিএডি / সিএএম কাজ করার পরিকল্পনা করেন তবে আপনাকে কমপক্ষে ১৬ গিগাবাইট RAM নিতে হবে। RAM পূর্ণ কার্যকর করার জন্য অবশ্যই আপনার কম্পিউটারে ৬৪ বিটের অপারেটিং সিস্টেম ইন্সটল করে নিবেন।
• হার্ড ড্রাইভ
এখনকার কম্পিউটারগুলিতে সাধারণত ৫০০ গিগাবাইট থেকে ১০২৪ গিগাবাইট হার্ড ড্রাইভ থাকে। আপনি আপনার প্রয়োজন অনুযায়ী হার্ডড্রাইভ নিবেন যা অবশ্যই আমার বাজেটের মধ্যে। অনেকেই তাদের গুরুত্বপূর্ণ তথ্য ক্লাউড স্টোরেজে সংরক্ষণ করে,চাইলে আপনিও তা করতে পারেন। বেশকিছু ফ্রী ক্লাউড স্টোরেজ সেবা প্রদানকারি আছে।
কোথায় বিনামূল্যে ক্লাউড স্টোরেজ পাবেন
গুগল প্রথম ১৫ গিগাবাইট ফ্রী জায়গা দেয়। এছাড়া ১০০ গিগাবাইটের জন্য মাসিক ১.৯৯ ডলার এবং ১০২৪ গিগাবাইটের জন্য মাসিক ৯.৯৯ ডলার নেয়।
pCloud ১০ গিগাবাইট ফ্রী জায়গা দেয়।
MediaFire ১০ গিগাবাইট ফ্রী জায়গা দেয়।
Dropbox ২ গিগাবাইট ফ্রী জায়গা দেয়।
এছাড়াও আরও অনেক ফ্রী ক্লাউড স্টোরেজ সেবা প্রদানকারি আছে।
• গ্রাফিক্স
এখন প্রায় সব কম্পিউটার মাদারবোর্ডে বিল্টইন গ্রাফিক্স থাকে। আপনি যদি ভারী গ্রাফিক্সের কাজ না করেন তাহলে বিল্টইন গ্রাফিক্সই যথেষ্ট। কিন্তু আপনি যদি চান তাহলে NVIDIA বা AMD গ্রাফিক্স কার্ড নিতে পারেন। এই গ্রাফিক্স কার্ড গুলো আপনার কম্পিউটার রেজল্যুশন ভাল করবে। NVIDIA কার্ড অ্যাডোব প্রোগ্রামগুলির জন্য ভাল।
• এন্টিভাইরাস সফ্টওয়্যার
আপনার কম্পিউটারের জন্য একটি এন্টিভাইরাস সফ্টওয়্যার খুবই গুরুত্বপূর্ণ। কারন এটি বিভিন্ন কম্পিউটার ভাইরাস থেকে আপনার কম্পিউটারকে সুরক্ষা প্রদান করবে। আপনি যদি মাইক্রোসফটের লাইসেন্স অপারেটিং সিস্টেম নেন। তাহলে এর সাথে উইন্ডোজ ডিফেন্ডার নামে একটি এন্টিভাইরাস সফ্টওয়্যার ফ্রী পাবেন। বর্তমানে এই এন্টিভাইরাস সফ্টওয়্যারটি খুব ভাল কাজ করে।

আমি আশা করি উপরের তালিকাগুলো আপনার নতুন কম্পিউটার কেনার সময় গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত নেওয়ার জন্য আপনাকে সহায়তা করবে।

0 মন্তব্য
0

তুমিও পছন্দ করতে পার

মতামত দিন