বিশ্বের সবচেয়ে বড় ভার্চুয়াল বিদ্যুৎ কেন্দ্র তৈরি করা হয়েছে অস্ট্রেলিয়ায়

সবচেয়ে বড় ভার্চুয়াল বিদ্যুৎ কেন্দ্র

অস্ট্রেলিয়ায় সাড়ে ৬ হাজার বাড়ির সমন্বয়ে একটি ‘বৃহত্তম ভার্চুয়াল পাওয়ার প্ল্যান্ট’ তৈরি করা হয়েছে। এই পরিকল্পনার ভবিষ্যৎ অংশ হিসেবে, দক্ষিণ অস্ট্রেলিয়া জুড়ে কমপক্ষে ৫০ হাজার বাড়িতে সৌর ও ব্যাটারি সিস্টেম স্থাপন করা হবে, যার ধারণ ক্ষমতা হবে ২৫০ মেগাওয়াট / ৬৫০ মেগাওয়াট ঘন্টা। নতুন এই ভার্চুয়াল পাওয়ার প্ল্যান্ট রাষ্ট্রীয় শক্তির প্রায় ২০ শতাংশ চাহিদার পূরণ করতে সক্ষম হবে। ধারনা করা হচ্ছে এটি সবচেয়ে বড় ভার্চুয়াল বিদ্যুৎ কেন্দ্র।

এটি মূলত সৌরশক্তিসহ একাধিক উৎস থেকে স্থিতিশীল বিদ্যুৎ পাওয়ার উপায়। প্রকল্পের প্রতিটি বাড়িতে সৌরশক্তি আহরণের জন্য নেটওয়ার্কের মাধ্যমে সৌর প্যানেল বসানো হয়েছে। এছাড়া প্রতিটি বাড়িতেই যুক্ত করা হয়েছে ব্যাটারি ও সংযুক্ত পাওয়ার ইউনিট। প্রতিটি বাড়ি একে অপরের সাথে যুক্ত আছে গ্রিডের মাধ্যমে। কোনো বাড়ি থেকে উৎপাদিত বাড়তি বিদ্যুৎ তারা মূল গ্রিডে পাঠিয়ে দিবে এরপর অন্যরা অর্থ দিয়ে গ্রিডের বিদ্যুৎ ব্যবহার করতে পারবে। এর ফলে স্থিতিশীল বিদ্যুৎ এক জায়গায় থাকার পরিবর্তে হাজার হাজার বাড়ীতে ছড়িয়ে পড়েছে। অপরদিকে যারা বিদ্যুৎ উৎপাদন করে গ্রিডে পাঠাবে, তারাও মিটারের মাধ্যমে অর্থ উপার্জন করতে পারবে।

অস্ট্রেলিয়ার দক্ষিণাঞ্চলে বিদ্যুৎ সংকট বেশ প্রকট। ভার্চুয়াল বিদ্যুৎ কেন্দ্র ব্যবহার করে তারা প্রতিটি বাড়িতে যেমন বিদ্যুৎ নিশ্চিত করতে পারবে, তেমন এ বিদ্যুৎ অন্যরাও ব্যবহার করতে পারবে।  এর ফলে ঐ এলাকায় একটি স্থিতিশীল বিদ্যুতের উৎস নিশ্চিত হবে। তবে চার বছরের এ প্রকল্প সম্পন্ন হলে বিদ্যুৎ সংকট আর থাকবে না বলেই আশা করছে অস্ট্রেলিয়া কর্তৃপক্ষ। প্রকল্পটি বাস্তবায়নের জন্য ব্যাটারি ও সংযুক্ত পাওয়ার ইউনিট দিয়ে সহায়তা করছে আমেরিকান কোম্পানী টেসলা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here