৩০ পয়সা মিনিটে কথা বলুন যে কোন মোবাইল ও ল্যান্ডফোন নম্বরে

brilliant-connect-app

দেশে এখন মোবাইল ফোনের গ্রাহক সংখ্যা ১৬ কোটিরও বেশি। তাই যোগাযোগের জন্য এখনও প্রধান মাধ্যম হল মোবাইল ফোন। বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশনের নির্দেশ অনুযায়ী গত ১৪ আগস্ট ২০১৮ থেকে মোবাইল ফোনের সর্বনিম্ন কলরেট প্রতি মিনিট ২৫ পয়সা থেকে বাড়িয়ে ৪৫ পয়সা করা হয়েছে। এর ফলে আমাদের মোবাইল ফোন ব্যবহারের খরচ বেড়ে গেছে। আগে আমরা এফ এন এফ ফিচার বা বিভিন্ন বান্ডেল প্যাকেজ ক্রয় করে কম খরচে কথা বলতে পারতাম। এখন আর সেই সুযোগ নেই। তবে আমরা যারা থ্রি-জি, ফোর-জি বা ওয়াইফাই সংযোগ ব্যবহার করে ইন্টারনেট ব্যবহার করি যাদের পর্যাপ্ত ইন্টারনেট ডাটা আছে, তারা কিন্তু “ব্রিলিয়ান্ট ক্যানেক্ট” অ্যাপ ব্যবহার করে ৩০ পয়সা মিনিটে কথা বলুন যে কোন মোবাইল ও ল্যান্ডফোন নম্বরে। যার পালস হল ১ সেকেন্ড। আর ব্রিলিয়ান্ট কানেক্ট থেকে ব্রিলিয়ান্ট কানেক্ট অ্যাপ এবং যে কোন ০৯৬ আইপি নম্বরে কল করুন একদম ফ্রি।

কিভাবে এই অ্যাপটি ব্যবহার করবেনঃ আপনি যদি অ্যান্ড্রয়েড হ্যান্ডসেট ব্যবহার করেন তা হলে গুগল প্লে-স্টোর থেকে “brilliant connect” অ্যাপটি ডাউনলোড করে ইন্সটল করে নিন। আর আপনি যদি আইফোন ব্যবহার করেন তা হলে অ্যাপেল স্টোর থেকে অ্যাপটি ডাউনলোড করে ইন্সটল করুন। অথবা এই লিঙ্ক থেকে অ্যাপটি ডাউনলোড করুন app.brilliant.com.bd। এবার প্রয়োজনীয় তথ্য এবং ভেরিফিকেশন কোড বসিয়ে আপনার অ্যাপটি একটিভ করুন। অ্যাপটি একটিভ হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে আপনি ০৯৬ সিরিজের একটা নম্বর পেয়ে যাবেন। সঙ্গে পাবেন ৩ টাকার ব্যালেন্স। এবার কিন্তু আপনি একটা ইউনিক ফোন নম্বর পেয়ে গেলেন। এই নম্বর থেকে পৃথিবীর যে কোন ফোন নম্বরে আপনি কল করতে পারবেন, এবং কল গ্রহণও করতে পারবেন।

brilliant-connect

ব্রিলিয়ান্ট ক্যানেক্ট অ্যাপ এর ফিচারসমুহঃ

১। অ্যাপ টু অ্যাপ/মোবাইল/ল্যান্ডফোন কলিংঃ ব্রিলিয়ান্ট ক্যানেক্ট অ্যাপ এর মাধ্যমে আপনি যে কোন মোবাইল, ল্যান্ডফোনে কম খরচে কথা বলতে পারবেন। অ্যাপ টু অ্যাপ ভয়েস এবং ভিডিও কলে কথা বলা একদম ফ্রি।

২। টেক্সট ম্যাসেজিংঃ অ্যাপ টু অ্যাপ ফ্রি মেসেস পাঠানো যায়। এ ছাড়া যে কোন মোবাইল নম্বরে খুব কম খরচে টেক্সট ম্যাসেস পাঠাতে পারবেন।

৩। ফটো এবং ভিডিও শেয়ারিংঃ আপনার ফোন এর গ্যালারি থেকে যে কোন ছবি এবং ভিডিও আপনি অন্যজনের নিকট শেয়ার করতে পারবেন খুব সহজেই।

৪। ভিডিও এবং ভয়েস ম্যাসেজ শেয়ারিংঃ রেকর্ডকৃত অডিও এবং ভিডিও ক্লিপস আপনার প্রিয়জনের নিকট সহজেই শেয়ার করতে পারবেন।

৫। গ্রুপ চ্যাটঃ বন্ধু, পরিবার অথবা কর্পোরেট গ্রুপ তৈরি করে সবার মাঝে টেক্সট ম্যাসেস, ছবি, অডিও এবং ভিডিও ক্লিপস শেয়ার করতে পারবেন।

৬। লোকেশন শেয়ারিংঃ এই অপশনের মাধ্যমে আপনি আপনার বন্ধুর কাছে আপনার লোকেশন ম্যাপ শেয়ার করতে পারবেন।

৭। এনক্রিপশন এর মাধ্যম নিরাপত্তাঃ এই অ্যাপ এর মাধ্যমে নিরাপত্তার সঙ্গে টেক্সট ম্যাসেস, লোকেশন ম্যাপ এবং ছবি শেয়ার করতে পারবেন। দুই জনের মধ্যে অডিও এবং ভিডিও ক্লিপস পাঠাতে পারবেন এবং গ্রহণ করতে পারবেন। ব্রিলিয়ান্ট ক্যানেক্ট অ্যাপটি নিরাপত্তা ব্যবস্থা খুবই শক্তিশালী।

কিভাবে ব্যালেন্স রিচার্জ করবেন?

ব্রিলিয়ান্ট ক্যানেক্ট অ্যাপ এর রিচার্জ পদ্ধতি একটু জটিল হলেও খুব কঠিন কিছু না। একবার মনোযোগ দিয়ে সিস্টেম টা বুঝতে পারলে পরবর্তীতে আর কোন সমস্যা হবে না। রিচার্জ করতে হলে আপনাকে সেটিংস ট্যাবে যেতে হবে। এর পর ইউজার ইনফো ট্যাবে গেলেই রিচার্জ করার অপশন গুলো পেয়ে যাবেন। আপনি বিকাশ, রকেট, ডেবিট ও ক্রেডিট কার্ড, ইন্টারনেট ব্যাংকিং, আই পে ইত্যাদির মাধ্যমে ২০ টাকা থেকে শুরু করে ৫০০ টাকা পর্যন্ত রিচার্জ করতে পারবেন। রিচার্জকৃত ব্যালেন্স এর কোন মেয়াদ নেই, তাই আজীবন ব্যালেন্স ব্যবহার করতে পারবেন।

অ্যাপ সম্পর্কে বিস্তারিতঃ

অনেকেই মনে মনে ভাবতে পারেন – এরা কি বৈধভাবে ব্যবসা করছে? পালিয়ে যাবে না তো? এর উত্তরে বলতে পারি ব্রিলিয়ান্ট হলো টেলিযোগাযোগ সার্ভিস প্রদানকারী বড় একটা গ্রুপ অফ কোম্পানি। এদের লাইসেন্স আছে, সরকারি অনুমোদন আছে। এদের কোম্পানিগুলো হলো ইন্টারক্লাউড, নভোটেল, নভোকম, নভোনিক্স। সুতরাং বৈধতা নিয়ে কোন প্রশ্ন নেই। এদের সার্ভিসের মান ভাল। কথা খুব পরিষ্কার শোনা যায়। আপনি ব্যবহার করে দেখতে পারেন। আশা করি নিরাশ হবেন না।

বিদ্রঃ এই মুহূর্তে তাদের একটা অফার চলছে সেটা হলো লোকাল যে কোন মোবাইল নম্বর থেকে কল রিসিভ করলেই প্রতি মিনিটের জন্য আপনি ৩০ পয়সা বোনাস পাবেন। অনেকদিন অ্যাপটি ব্যবহার করে ভালো লাগার কারনেই সবার সুবিধার জন্য এই লেখা।

মাহমুদুল হাসান

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *